পাকিস্তান ও চীন ‘লৌহবর্ম’ বন্ধুত্বের চুক্তি স্বাক্ষর

পাকিস্তানের সঙ্গে চীনের সম্পর্ক নতুন মাত্রায় উপনীতি হয়েছে। এবার নিজেদের দীর্ঘদিনের বন্ধুত্বকে আরও দৃঢ় ভিত্তি দিতে ‘লৌহবর্ম’ বন্ধুত্বের চুক্তি স্বাক্ষর করেছে পাকিস্তান ও চীন। মঙ্গলবার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে চীনের

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির মধ্যে এক বৈঠক শেষে সাক্ষরিত হয় এই চুক্তি।এই চুক্তির ফলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা আরও গভীর হবে বলে এক বিবৃতিতে সাংবাদিকদের জানিয়েছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়।

মুসলিম দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের জোট অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো অপারেশন কাউন্সিল অব ফরেইন মিনিস্টার্সের ৪৮ তম সভা চলছে ইসলামাবাদে। এই সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে মাহমুদ কুরেশির আমন্ত্রণে পাকিস্তানের রাজধানিতে এসেছেন ওয়াং।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দুই দেশের মধ্যে কৌশলগত, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট সহযোগিতা আরও বাড়ানোর বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে চুক্তিতে। ইউক্রেন ও আফগানিস্তানে শান্তি স্থাপনে চীন ও পাকিস্তানের সমন্বিত প্রচেষ্টার ওপরও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্কে নতুন কিছু বিষয়ও যুক্ত হয়েছে। পাকিস্তানের ৫টি নতুন খাতে সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে চীন।

এসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি খাত হলো শিক্ষাব্যবস্থা। পাকিস্তানের উচ্চশিক্ষা খাতে সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে চীন। এই সহায়তা প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘মিউচ্যুয়াল রিকগনিশন অব হায়ার এডুকেশন সার্টিফিকেট অ্যান্ড ডিগ্রিজ’।

মঙ্গলবারের বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘দুই দেশের মধ্যকার বন্ধুত্বকে লৌহবর্মের মত দৃঢ় করে তুলতে আরও কী কী পদক্ষেপ নেওয়া যায়— সে বিষয়ক আলোচনা করেছেন পাকিস্তান ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।’

সূত্র: প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া