প্রয়োজনে বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করে দেওয়া হবে!

প্রয়োজনে বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করে দেওয়া হবে!

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির জন্য দুশো আসনের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করে অমিত শাহ জানালেন, ভুয়া ভোটার নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনে বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করে দেয়া হবে। শুক্রবার নিউ টাউনে ওয়েস্টিন হোটেলে মালদহ, নদীয়া ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার বিএসএফ কর্তাদের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বের আশংকা উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে প্রচুর ভুয়া ভোটার আনা হয়। এবার সীমান্তে নজরদারি চালাতে হবে যাতে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীরা বাংলায় ভোট না দিতে পারে। তিনি এমন নজরদারি চালানোর কথা বলেন যাতে একটি মশা কিংবা মাছিও সীমান্ত টপকে না আসতে পারে। এসময় তিনি প্রয়োজনে সীমান্ত সিল করার কথা বলেন।

শুক্রবার সকালে অমিত শাহ দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পূজা দেন। এরপর সংগীত বিশারদ পন্ডিত অজয় চক্রবর্তীর গল্ফ ক্লাব রোডের বাড়িতে যান। পূর্বাঞ্চলীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে মুখোমুখি হন কলকাতা ও নবদ্বীপ এর কার্যকর্তাদের সঙ্গে। এরই ফাকে দেখা করেন বিজেপি কর্তা রাহুল সিনহার সঙ্গে। বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়।

সবাইকেই তিনি বলেন, বাংলাকে মমতা বন্দোপাধ্যায় এর কুশাসন থেকে মুক্ত করতে হবে। অমিত শাহ জানান, দক্ষিণেশ্বরে ভবতারিনীর কাছে তিনি এই মর্মে পূজাও দিয়েছেন।

শুক্রবার এই ভাষাতেই ঘুরিয়ে মমতা ও সংখ্যালঘু রাজনীতির প্রসঙ্গ টেনে আনলেন অমিত শাহ। তিনি এদিন বলেন, এই ভূমি চৈতন্য মহাপ্রভু, শ্রীরামকৃষ্ণ, স্বামী বিবেকানন্দের ভূমি। এখানে এই তোষণের রাজনীতি চলতে পারে না। এদিন দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দেন অমিত শাহ।