ট্রাম্পের পতনের ‘শেষ পেরেক’

ট্রাম্পের পতনের ‘শেষ পেরেক’

হোয়াইট হাউস, পৃথিবীর অন্যতম ক্ষমতার দফতরটির জন্য তুমুল লড়াই চলছে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের মধ্যে।হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে। ফলাফল চলে আসছে অনেক রাজ্যের। এগিয়ে আছেন বাইডেন। এখন চূড়ান্ত ঘোষণার অপেক্ষা। ফলাফল জানার পাশাপাশি আগ্রহ জাগছে কোথায় শেষ হতে যাচ্ছে ট্রাম্প জামানার।

৫৩৮টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের মধ্যে ২৬৪টিতে এগিয়ে আছেন বাইডেন। জয়ের জন্য ২৭০টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট নিশ্চিতে দরকার আরও ৬টি।ট্রাম্প এগিয়ে আছেন ২১৪টিতে। জয়ের জন্য দরকার ৫৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট।৫টি রাজ্যের ৬০টি ইলেকটোরাল কলেজের ভোট এখনো গণনা বাকি। রাজ্যগুলো হলো:

জর্জিয়া: ইলেকটোরাল কলেজ ভোট সংখ্যা ১৬। সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে ট্রাম্প। ব্যবধান: ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৯ দশমিক ৭১ শতাংশ ভোট। বাইডেন ৪৯ দশমিক ০৬ শতাংশ।

নেভাদা: এ রাজ্যে ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের সংখ্যা ৬। এ ৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটই প্রয়োজন বাইডেনের। রাজ্যে এগিয়ে আছেনও তিনি। ব্যবধান: বাইডেন ৪৯ দশমিক ৩৩ শতাংশ, ট্রাম্প ৪৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

নর্থ ক্যারোলিনা: এখানে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট সংখ্যা ১৫। ট্রাম্প এগিয়ে আছেন ৫০ দশমিক ০৯ শতাংশ ভোটে। বাইডেন এ পর্যন্ত পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ ভোট।

পেনসিলভানিয়া: এ রাজ্যটিতে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট সংখ্যা ২০। ৫০ দশমিক ৭২ শতাংশ ভোট পেয়ে ট্রাম্প এগিয়ে আছেন। বাইডেন পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ১৩ শতাংশ ভোট।

উপরের চারটিই সুইং স্টেট, ব্যাটলগ্রাউন্ড বা দোদুল্যমান রাজ্যের মধ্যে পড়েছে। ১২টি এমন দোদুল্যমান রাজ্য রয়েছে। যেগুলো মার্কিন নির্বাচনে ফলাফল নির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এসব রাজ্যের ভোটাররা কাকে ভোট দেবেন তা আগে থেকে জানা না থাকায় ভোটারদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে রাজ্যগুলোকে সুইং স্টেট বলা হয়।

ফলাফল ঘোষণা হয়নি আলাস্কায়ও। চলছে ভোট গণনা। এ রাজ্যে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ৩টি। ৬২ দশমিক ১১ শতাংশ ভোট নিয়ে এগিয়ে ট্রাম্প। বাইডেন পেয়েছেন ৩৩ দশমিক ৫১ শতাংশ।

এখন প্রশ্ন হলো এগিয়ে থাকা নেভাদা কি বাইডেনের জয়ের ভাগ্য নির্ধারণ করে দিতে পারবে? অতীত ইতিহাস বলছে, ২০১৬ সালের নির্বাচনে নেভাদায় জয় পান ডেমোক্রেট দলীয় প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। ২০১২ সালে জয় পান সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ২০০৮ সালে ওই রাজ্যের ৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটও পান বারাক ওবামা।

রাজ্যের সর্বোচ্চ ভোট যে দল পায় তার ঝুলিতেই যায় রাজ্যের সবকটি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। ডেমোক্র্যাটদের ঘাঁটি নেভাদায় সব কিছু ঠিক থাকলে যে বাইডেনই জয়ী হবেন তা মোটামুটি নিশ্চিত।

অন্যদিকে জর্জিয়ায় অল্প ব্যবধানে ট্রাম্প এগিয়ে আছেন। এ রাজ্যে ২০১৬ সালের নির্বাচনেও তিনি জয়ী হন। ২০১২ সালে বারাক ওবামাকে হারিয়ে জয় পান রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী মিট রমনি। ২০০৮ সালেও সেখানে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জন ম্যাককেইনের কাছে পরাজিত হন বারাক ওবামা।

রিপাবলিকানদের এ ঘাঁটিতে ভোটের ব্যবধান আরো বাড়িয়ে ট্রাম্প এগিয়ে যাবেন, নাকি পাশার দান উল্টে বাইডেনের দিকে ঘুরে যায় সেটাও দেখার অপেক্ষা।