আইএসকে সহযোগিতার অভিযোগ স্বীকার বাংলাদেশি দম্পতির

স’ন্ত্রা’সী গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটকে (আ’ইএ’স) অর্থ ও সরঞ্জাম দিয়ে সহযোগিতার অ’ভিযোগ স্বী’কার করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ায় বসবাসরত এক বাংলাদেশি দম্পতি।

বৃহস্পতিবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজ এ তথ্য জানিয়েছে। সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, শহিদুল গাফফার (৪০) তার স্ত্রী নাবিলা খানের (৩৫) দুই ভাইকে দুই ভাইকে সিরিয়ায় আই’এসে যোগ দিতে অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করেছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি উইলিয়াম এম ম্যাকসোয়াইন বলেছেন, আ’সা’মিরা নাবিলা খা’নের ভাই’দের খু’নি স’ন্ত্রা’সী গো’ষ্ঠী আই’এসআইএসে যোগ দিতে উৎ’সাহ ও সমর্থন জু’গিয়েছেন,

যেটি সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার প্রতি হুম’কি।’ আদালত গা’ফফা’র ও নাবিলা খানকে সর্বোচ্চ পাঁচ বছ’রের কা’রাদ’ণ্ড, আ’ড়াই লাখ ড’লার জ’রিমানা ও মু’ক্তির পর তিন বছর পর্যবেক্ষণে থাকার শা’স্তি দিতে পারেন।

আরো পড়ুন:মুসলিমদের ১৫ দিন সময় বেধে দিলো ফ্রান্স!

ফ্রান্সে ধর্ম-নি’রপে’ক্ষতা র’ক্ষায় নতুন আইন প্রণয়ন কর’লো সরকার। যা মেনে নিতে মুসলিম জনগো’ষ্ঠীকে ১৫ দিনের সময় বেঁধে দি’য়েছেন প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন। ফ্রেঞ্চ কাউ’ন্সিল অব দি মুসলিম ফেইথ-এর ৮ নেতার সাথে বৈঠকে তিনি মুসলিম নেতা’দের রাষ্ট্রীয় মূল্য’বোধকে ধারণ করতে বলেন।

এ নির্দেশনার বিষয়ে মুসল্লিদের স’তর্ক করতে মসজিদের ই’মামদের নিয়ে একটি জাতীয় কমিটি গঠনের আ’শ্বাস দেন মুসলিম নেতারা। গেলো এক মাসের মধ্যে, দেশটিতে ৩টি স’ন্ত্রা’সী হা’ম’লার পর ফরা’সি সরকার এ সিদ্ধান্ত নিলো।

নতুন বিধিমালায় বলা হয়েছে, কোনো ভাবেই ধর্মকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যাবে না। ফরাসি মুসলিম জনগোষ্ঠিতে বিদেশি কারো প্র’রোচণা চলবে না। ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ এবং ইসলাম অবমাননার অভিযোগে বিশ্বজুড়ে চলছে ফ্রান্সের পণ্য বয়কট কর্মসূচি।