অবশেষে প্রথমবারের মতো আফগান সফরে ইমরান

Pakistani Prime Minister Imran Khan speaks during the 74th Session of the General Assembly at UN Headquarters in New York on September 27, 2019. (Photo by Don Emmert / AFP)

আফগান-তালেবান শান্তি আলোচনা এবং প্রতিবেশী দেশ হিসেবে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদার ছাড়াও অন্যান্য ইস্যু নিয়ে আলোচনার করতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ প্রতিনিধি দল নিয়ে প্রথমবারের মতো আফগানিস্তান সফরে গেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বৃহস্পতিবার ইসলামাবাদ এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

উত্তর-পশ্চিমের সীমান্ত লাগোয়া ও কূটনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী দেশটির রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমাবন্দরে অবতরণ করলে ইমরান খানকে স্বাগত জানান আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ হানিফ আতমার ও প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির পাকিস্তান সংক্রান্ত বিশেষ দূত ওমর দাউদজাই।

আফগানিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গ্রান্স হেওয়াদ বলেন, কাবুল সরকারের সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত তালেবানের মধ্যে শান্তি আলোচনায় ইসলামাবাদের ভূমিকা সম্পর্কে আফগানিস্তান নেতৃত্বের সঙ্গে নিজের অবস্থান ভাগাভাগি করবেন পাক প্রধানমন্ত্রী। প্রসঙ্গত, দুই পক্ষের আলোচনায় মধ্যস্থতা করছে পাকিস্তান।

এর আগে পাকিস্তান বিবৃতিতে জানায়, পাকিস্তান-আফগানিস্তানের সম্পর্ক আরও দৃঢ় করা, আফগান শান্তি প্রক্রিয়া এবং আঞ্চলিক অর্থনৈতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। এ সফরে ইমরানের খানের সঙ্গে রয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহুমুদ কুরেশি এবং তার বাণিজ্য ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা রাজ্জাক দাউদ।

বিগত কয়েক মাসে আফগান সরকারের পক্ষে শান্তি আলোচনার নেতৃত্ব দেয়া আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ, দেশটির সংসদের নিম্নকক্ষের স্পিকার রহমান রহমানি এবং বাণিজ্যমন্ত্রী সিরাস আহমাদ ঘোরাইনি ছাড়াও আরও অনেকে পাকিস্তান সফর করার পর আফগানিস্তান সফরে গেলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

ইমরানের সফরের একদিন আগে আফগানিস্তানে মোতায়েন ৪ হাজার ৫০০ সেনার মধ্যে ২ হাজার সেনা দেশে ফিরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গত ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যকার চুক্তিতে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়টি ছিল। ওই চুক্তির পরই মূলত আলোচনার টেবিলে বসে কাবুল সরকার ও তালেবান।