শেষ মুহূর্তে করোনার ভ’য়ঙ্কর এক নতুন উপসর্গ!

শেষ মুহূর্তে করোনার ভ’য়ঙ্কর এক নতুন উপসর্গ!

করোনাভাইরাস শুধু প্রাণঘা’তী-ই নয়,এই ভাইরাস এতটাই ভ’য়ঙ্কর যে আক্রান্ত ব্যক্তি প্রাণে বেঁচে গেলেও এর সংক্রমণে অঙ্গহানিও হতে পারে। এবার প্রকাশ্যে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গেছে, করোনাভাইরাস সংক্র’মণজনিত

কারণে এক ব্যক্তির চিরতরে বধির হওয়ার প্রমাণ পেয়েছেন ব্রিটেনের চিকিৎসকরা। পৃথিবীতে এমন নজির এটিই প্রথম। খবর দ্য সান, নিউইয়র্ক পোস্ট, দ্য টাইমস, সিডিটি, স্কাই নিউজ ও লাইভ সায়েন্সের।

৪৫ বছর বয়সী ওই ব্রিটিশ কানে শোনার ক্ষমতা হা’রানোর পর ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটির বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, কিছু ব্যক্তির ক্ষেত্রে এমনটি হতে পারে।এনআইএইচআর-এর অর্থায়নে পরিচালিত একটি গবেষণায় এর আগে ১২১ জন করোনা রোগীর ত’থ্য-উপাত্ত পর্যবেক্ষণ করেন বিশেষজ্ঞরা।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার ৮ সপ্তাহ পর ফোনের মাধ্যমে তাদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। কানে কম শুনতে পাচ্ছেন কি না, এমন প্রশ্নের জাবে ১৩.২ শতাংশ মানুষ জানান আগের থেকে অবস্থা খারাপ।

এর মধ্যে আবার আটজনের কানে ভোঁ-ভোঁ শব্দ হয়েছে। বাইরের কোনও আওয়াজ ছাড়াই তাদের এমন অনুভূতি হয়। এখন যে ব্যক্তি এক কানে শ্রবণক্ষমতা পুরোপুরি হারিয়েছেন তার অ্যাজমা ছিল। উপসর্গের ১০দিন পর তাকে আইসিইউতে নেন ডাক্তাররা।

এরপর ৩০ দিন থাকতে হয় ভেন্টিলেশনে। সেখান থেকে ছাড়া পাওয়ার সপ্তাহ খানেক পর বাঁ কানের শ্রবণশক্তি হারিয়ে ফেলেন তিনি। অ্যাজমা থাকলেও লোকটি সুস্থ-সবল ছিলেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড পত্রিকা দ্য সান।