গোলান থেকে ইরানকে উৎখাতের হুঁ’শিয়ারি ইসরাইলের

গোলান থেকে ইরানকে উৎখাতের হুঁ’শিয়ারি ইসরাইলের

গোলান মালভূমি সীমান্তে ইরান এবং হিজবুল্লাহর উপস্থিতি সহ্য করা হবে না বলে হুঁ’শিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ইসরাইলের প্রতির’ক্ষামন্ত্রী বেনি গ্র্যান্টজ। বুধবার ইসরাইল রেডিওর কাছে এ মন্তব্য করেন তিনি। গোলান মালভূমির পার্শ্ববর্তী সিরিয়ার কুনেয়ত্রা প্রদেশে মঙ্গলবার রাতে ইসরাইল ক্ষে’পণা’স্ত্র হা’মলা চালালে ব্যাপকভাবে ক্ষ’তিগ্র’স্ত হয় আল হুররিয়া গ্রাম।

সিরিয়ার রাষ্ট্র গণমাধ্যমের এমন দাবির পরই ইসরাইলের প্রতির’ক্ষামন্ত্রী এ বিবৃতি দিলেন। টাইম অব ইসরাইল গ্র্যান্টজকে প্রশ্ন করেছিল, ওইদিন রাতভর সিরিয়ায় কি হয়েছিল? জবাবে তিনি বলেন, আমি ওখানে যাইনি, কে হা’মলা চালিয়েছে, কি হয়েছে গত রাতে-এসবের কিছুই আমি জানি না।

ওই অঞ্চল থেকে হিজবুল্লাহ এবং ইরানের স’ন্ত্রা’সী কর্মকাণ্ড সমূলে উ’পড়ে ফেলতে যা কিছু করা লাগে, সম্ভাব্য সব কিছু করার প্রতিশ্রুতি পুন’র্ব্যক্ত করেন তিনি। ২০১১ সালে সিরিয়ায় গৃহযু’দ্ধ শুরু হয়। এ সুযোগে দেশটি ল’ক্ষ্য করে হাজারো বার ক্ষে’পণা’স্ত্র হা’মলা চালিয়েছে ইসরাইল।

এসব হা’মলার বিস্তারিত খুব কমই জানিয়েছে ইসরাইলি সেনাবা’হি’নী। তাদের দাবি, বাশার আল আসাদকে সহায়তায় সিরিয়ায় ইরানের উপস্থিতি ইসরাইলের নিরা’পত্তায় হু’মকি তৈরি করছে। ১৯৬৭ সালে মাত্র ৬ দিনের বিচ্ছিন্ন আরব যু’দ্ধের পর থেকে ইসরাইল বিশাল গোলান মালভূমির দুই তৃতীয়াংশ দ’খ’ল করে আছে।