এরদোগানের পর ফ্রান্সকে ইমরান খানের হুঙ্কার!

এরদোগানের পর ফ্রান্সকে ইমরান খানের হুঙ্কার!

বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সা.)কে নিয়ে কটূ’ক্তি ও ব্যা’ঙ্গ’চিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে ফ্রা’ন্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রোর নিন্দা জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।ম্যাঁক্রোর এসব কাজ ইসলাম ফো’বিয়াকে উৎসা’হিত করে বলেও মন্তব্য করেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

রোববার এ খবর জানিয়েছে পাকিস্তানের প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম ডন অনলাইন। ইমরান খান বলেন, ইউরোপীয়ান নেতা ভেবেচিন্তে নিজ দেশ ও বিশ্বের মুসলিমদের উস’কানি দিয়েছেন। টুইটারে ইমরান লিখেছেন, ‘এটি এমন এক সময় যখন প্রেসিডেন্ট ম্যাঁক্রো চর’মপন্থা দূর ও এটিকে ছাড় দেওয়া অস্বী’কার করতে পারতেন, অথচ তিনি আরও মে’রুকরণ এবং প্রা’ন্তিককরণ করলেন, যা অ’নিবা’র্যভাবে মৌ’লবাদের দিকে নিয়ে যায়।’

আরকটি টুইটে ইমরান বলেন, ‘এটা দুর্ভা’গ্যজ’নক যে, যেসব স’ন্ত্রা’সী মুসলিম, শ্বেত শ্রে’ষ্ঠত্ববাদী বা না’ৎসি আদর্শের হয়ে স’ন্ত্রা’সী হা’ম’লা চা’লায়, তাদের পরিবর্তে তিনি ইসলামের ওপর হা’ম’লার মা’ধ্যমে ইসলাম আত’ঙ্ককে উৎ’সাহ দেওয়া বেছে নিয়েছেন।’

ইসলাম ধর্ম ও বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সা.)কে নিয়ে ব্যা’ঙ্গচি’ত্র প্রদর্শন বন্ধ করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। বিশ্বনবীকে নিয়ে একটি বিতর্কিত কার্টুন দে’খানোর জেরে খু’ন হওয়া ফ’রাসি শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে সম্মান জানাতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সম্প্রতি ম্যা’ক্রোঁ এ কথা বলেছেন।

এর আগে গত ১৬ অক্টোবর ফ্রান্সের একটি সড়কে শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে হ’ত্যা ক’রেছিল এক তরুণ। ওই শিক্ষক ক্লাসে মহানবীর কা’র্টুন দেখিয়ে মতপ্রকা’শের স্বাধীনতার ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন। শিক্ষকের ওপর হা’ম’লাকা’রী আব’দৌলখ নামের ওই তরুণ ঘট’নাস্থলেই পুলিশের গু’লি’তে নি’হ’ত হয়েছিলেন।