ইরানে আরও ১০ ক্ষে’পণা’স্ত্রের আ’ঘাত; তেহরানের ক’ঠোর হুঁ’শিয়ারি

ইরানে আরও ১০ ক্ষে’পণা’স্ত্রের আ’ঘাত; তেহরানের ক’ঠোর হুঁ’শিয়ারি

আ’জারবাই’জান ও আ’র্মেনি’য়ার যু’দ্ধের ক্ষে’পণা’স্ত্র আ’ঘা’ত হে’নে’ছে ইরানের কয়েকটি গ্রামে। বৃহস্পতিবার মাত্র পাঁচ ঘণ্টার ব্যবধানে ইরানের বেশ ক’য়েকটি এই হা’ম’লা চলে। এই গো’লা আ’ঘা’ত হা’নার পরই ফুঁ’সে উঠেছে তেহরান। ইরানের পূর্ব আ’জারবাই’জান প্রদেশের ‘খোদা-অফারিন’ কাউন্টির গভর্নর আলী আমিরি-রাদ জানান,

বৃহস্পতিবার আ’জারবাই’জান ও আ’র্মেনি’য়ার সেনাদের মধ্যে তীব্র সং’ঘ’র্ষের সময় তার কাউন্টির কো’লিবিগ’লু ও কা’দখো’দালু গ্রামে ১০টি ক্ষে’পণা’স্ত্রে আ’ঘা’ত হে’নে’ছে। এসব ক্ষে’পণা’স্ত্রের বেশিরভাগই খোলা জায়গায় পড়লেও একটি ক্ষে’পণা’স্ত্র কো’লিবিগলু গ্রা’মের একটি বা’ড়িতে আ’ঘা’ত হানে। এর ফলে বা’ড়ির একাংশ বি’ধ্ব’স্ত হয় এবং একজন ইরানি আ’হ’ত হন।

এই ঘ’টনায় ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বৃহস্পতিবার রাতে ওই সতর্কবাণী উচ্চারণ করে বলেন, এ ধরনের বি’ক্ষি’প্ত গো’লাব’র্ষ’ণ অব্যা’হত থাকলে তেহরান নীরব থাকবে না। এ ধরনের খা’মখে’য়ালি কোনওভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় এবং সীমান্ত এলাকার জনগণের জানমালের নি’রাপত্তা রক্ষা করাকে ইরানের সশ’স্ত্র বাহিনী নিজেদের রেডলাইন বলে মনে করে।

তবে ইরান এরইমধ্যে এসব ক্ষে’পণা’স্ত্র ও গো’লার জবাব দিয়েছে বলে যে গুজব ছড়ানো হয়েছে তা নাক’চ করে দেন এই মুখপাত্র। এ নিয়ে গতমাসে এই সং’ঘ’র্ষ শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত খোদা-অফারিন কাউন্টির গ্রামগুলোতে অন্তত ৫০টি ক্ষে’পণা’স্ত্র ও কা’মানের গো’লা আ’ঘা’ত হা’নল।