এবার ইউএনও ওয়াহিদা হ’ত্যাচেষ্টা মামলায় ভিন্ন মোড় !

এবার ইউএনও ওয়াহিদা হ’ত্যাচেষ্টা মামলায় ভিন্ন মোড় !

ঘোড়াঘাট ইউএনও হ’ত্যাচে’ষ্টার মা’মলায় পু’লিশের ত’দন্তে ভিন্ন মোড়। নৈ’শপ্র’হরী পলাশের সহযোগিতায় ওয়াহিদা খানমের ওপর হা’ম’লা চা’লায় মালি রবিউল। সংবাদ সম্মেলনে নতুন এ তথ্য জানিয়েছে পুলিশ। এ মা’মলায় জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য রবিউলকে ছয়দিনের রি’মান্ডে দিয়েছেন আদালত। তার সহযোগী নৈ’শ প্রহরী পলাশ ও রি’মান্ড শেষ হওয়া আ’সামি আসাদুলকে কা’রাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, ইউএনও ওয়াহিদা খানম এখন অনেকটাই শ’ঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবার ওপর হ’ত্যাচে’ষ্টার ঘ’টনা নিয়ে দেখা দিয়েছে ধু্ম্রজাল। ঘ’টনার পর ৪ সেপ্টেম্বর আ’সামি আসাদুলকে গ্রে’ফতার করে র‌্যাব। সে সময় তারা জানায় চু’রির উদ্দেশেই আ’সামি আসাদুলের সহযোগিতায় নবীরুল হা’ম’লা করে ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবার ওপর।

এদিকে, শনিবার ঘোড়াঘাট উপজেলা প্রশাসনের বরখাস্ত কর্মচারী রবিউলকে গ্রে’ফতার করে পু’লিশ। তারা জানায়, রবিউলের আ’ঘা’তেই আ’হ’ত হয়েছেন দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা। ররিউলের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে উ’দ্ধার করা হয়েছে ঘ’টনায় ব্যবহৃত হা’তুড়িও। এছাড়া প্রাথমিক জি’জ্ঞাসাবাদে রবিউল পুলিশকে জানায়, ঘ’টনা লুকাতে পু’ড়িয়ে ফে’লা হয়েছে ঘ’টনার দিন ব্যবহৃত শার্ট, ক্যাপ ও গামছা।

শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন এ কথা জানান রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য। শিগগিরই এ হ’ত্যাকা’ন্ডের প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলেও জানান তিনি। হা’ম’লায় জড়িত তার সহযোগী হিসেবে আটক করা হয় বাসভবনের নৈ’শ প্র’হরী পলাশকে। পরে তাদের দু’জনকেই মা’মলায় গ্রে’ফতার দেখিয়ে হাজির করা হয় আদালতে। পুলিশের আবেদনের শুনানি শেষে মালি রবিউলের ৬ দিনের রি’মান্ড ম’ঞ্জুর করেন বিচারক।

এদিকে, গু’রুত’র আ’হ’ত ইউএনও ওয়াহিদা খানম এখন শ’ঙ্কামুক্ত। অবশ হয়ে থাকা তার ডান হাত এখন নাড়াচাড়া করছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। সকালে ওয়াহিদা খানমের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়। ২ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলী শেখকে হ’ত্যাচে’ষ্টা করা হয়।

এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মা’মলায় গত ৫ সেপ্টেম্বর, আ’সামি নবীরুল ও সান্টু কুমারের ৭ দিনের রিমা’ন্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। মা’মলার মূল আ’সামি আসাদুল, রি’মান্ডে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। এদিকে, ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হা’ম’লার ৯দিন পর ঘোড়াঘাট থা’নার ওসি আমিরুল ইসলামকে প্র’ত্যাহার করা হয়েছে।