যেভাবে খুলে দেয়া হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

যেভাবে খুলে দেয়া হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পেলেও ইতিমধ্যে সরকারি বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়েছে।এর আগে জানা গিয়েছিলো সবার শেষে খুলে দেয়া হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

আর তারই ধারাবাহিকতায় এবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেয়ার কথা চিন্তা ভাবনা করছে সরকার। তবে সেপ্টেম্বরেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে কিনা সে বিষয়ে এখনো সংশয় রয়েছে।

সূত্র অনুযায়ী সবার প্রথমে খুলে দেয়া হবে বিশ্ববিদ্যালয় এবং তারপরে পর্যায়ক্রমে উচ্চ মাধ্যমিক এবং মাধ্যমিক পর্যায়ের ক্লাস শুরু হবে। আর সবার শেষে খুলে দেয়া হবে প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহ।

জানা গেছে শিক্ষার ক্ষতি পোষাতে দুই ধরনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। একটি হলো সেপ্টেম্বরেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ খুলে দেয়া সম্ভব হলে সিলেবাস কমিয়ে শিক্ষাবর্ষ শেষ করা হবে আর অপরটি হলো আগামী বছরের ফেব্রুয়ারী-মার্চ পর্যন্ত চলতি শিক্ষাবর্ষের সময়সীমা বৃদ্ধি করা হবে।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন কালের কণ্ঠকে জানান, আমাদের কাছে সবার আগে বাচ্চাদের নিরাপত্তা, তাই সবকিছু বিবেচনায় নিয়েই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এসময় তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পোষাতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে যার মধ্যে একটি হলো শিক্ষার্থীদের জন্য পাঁচ মিনিট টোল ফ্রি পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

এদিকে করোনার কারনে এখন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়নি এইচএসসি পরীক্ষাও। এ বিষয়ে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক জানিয়েছেন, এইচএসসি পরীক্ষা নিতে হলে কমপক্ষে ১৫ দিন ২০ থেকে ২৫ লাখ লোকের চলাফেরা বাড়বে।

এতে ভয় থেকেই যাচ্ছে। কিন্তু দীর্ঘদিন করোনা থাকলে আমাদের বিকল্প ভাবতে হবে। আমরা সবকিছু নিয়েই কাজ করছি, পরিকল্পনা করছি। তবে আরো কিছুদিন সময় নিতে চাই।’