বরগুনার এমপি রিমনের বিরুদ্ধে মহিলা লীগ নেত্রীর সংবাদ সম্মেলন

বরগুনার এমপি রিমনের বিরুদ্ধে মহিলা লীগ নেত্রীর সংবাদ সম্মেলন

অ’শালীন ক’টুক্তির প্র’তিবাদ ও বিচার দাবী করে বরগুনা-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক হোসনেয়ারা রানী বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) দুপুরে বরগুনা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

তিনি প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ জাতীয় নেতৃবৃন্দের কাছে তদন্ত পূর্বক রিমনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন।

হোসনেয়ারা রানী লিখিত বক্তব্যে জানিয়েছেন, গত পহেলা আগস্ট বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার কাঠালতলী ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. দেলোয়ার হোসেনের মৌখিক অনুমতি নিয়ে জেলা পরিষদের জমিতে ঘর তুলতে গিয়েছিলেন।

এ সময় বরগুনা-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন পুলিশ পাঠিয়ে তাকে তাকে ঘর তুলতে বাধা দিয়েছেন। এনিয়ে এমপির সাথে কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক হোসনেয়ারা রানীর মোবাইলে ত’র্ক হয়েছে।

ওইদিন রাতে বরগুনা-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন মোবাইল করে ইব্রাহিম খলিলকে অ’শালীন ভাষায় গা’লাগা’লি করেছেন, যা একজন এমপির কাছ থেকে অ’শোভনীয়।

সংবাদ সম্মেলনের আগে হোসনেয়ারা রানী বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক বরাবরে বিচার দাবী করে লিখিত অ’ভিযোগ দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে ইব্রাহিম খলিলও উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন বলেন, সরকারি সম্পতিতে রানী এবং খলিল অবৈধভাবে ঘর উত্তোলন করতে যায়।

এ সময় স্থানীয় লোকজন বাধা দিলে আমি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশ পাঠাই। এ জন্য ক্ষুব্ধ হয়ে রানী আমাকে গা’লিগা’লাজ করে। পরে আমিও রাগ করে খলিলকে ফোন করে ক্ষু’ব্ধ প্র’তিক্রিয়া ব্যক্ত করি। সরকারি ওই স্থানে আরো ৮টি ঘর উত্তোলনের কাজ বন্ধ করা হয়েছে।