অবশেষে ভারতের সেই অন্তঃসত্ত্বা মুসলিম ছাত্রীর জামিন!

উনি অন্তঃসত্ত্বা বলে অপরাধের গুরুত্ব কমে যায় না।’ এই যুক্তি দেখিয়ে দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার ছাত্রী সাফুরা জারগরের জামিনের বিরোধিতা করেছিল দিল্লি পুলিশ।

সেই দিল্লি পুলিশ, যে জঙ্গিদের সাহায্য করা ব্যক্তি তথা সাসপেন্ড হওয়া ডিসিপি দারভিন্দরের চার্জশিট সময়মতো জমা দিতে পারেনি। যে কারণে সরাসরি জঙ্গিদের সাহায্য করা ব্যক্তি জামিন পেয়ে গিয়েছেন।

সাফুরা নিয়ে সেই দিল্লি পুলিশের নানা অজুহাত ধোপে টিকল না। এপ্রিল মাসে গ্রেফতার হওয়া জামিয়ার অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীকে এদিন জামিন দিয়ে দিল দিল্লির একটি নিম্ন আদালত।

এদিন মানবিক কারণ দেখিয়ে সাফুরাকে মুক্তি দিয়েছে আদালত। ফেব্রুয়ারি মাসে দিল্লিতে ঘটে যাওয়া রক্তক্ষয়ী দাঙ্গায় উস্কানি এবং মদতের অভিযোগে গত এপ্রিল মাসে তাকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

ইউপিএ আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিল পুলিশ। ব্যক্তিগত ১০ হাজার টাকার বন্ড এবং দিল্লি থেকে না বেরোনোর শর্তে তাঁর জামিন মঞ্জুর করেছে আদালত।

একইসঙ্গে মামলাটির তদন্তকারী অফিসারের সঙ্গে প্রতি ১৫ দিনে অন্তত একবার ফোনে যোগাযোগ করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে সাফুরার জন্য। বর্তমানে জামিয়ায় এম ফিল করছে ২৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রী।

এদিন মানবিক কারণে আদালত জামিন মঞ্জুর করলে কেন্দ্রে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বিরোধিতা করেননি।ফেব্রুয়ারি মাসে হওয়া দিল্লি দাঙ্গার ঘটনায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে

গত ১০ এপ্রিল জামিয়া মিলিয়ার রিসার্চ স্কলার সফুরা জারগরকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশ। বর্তমানে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা সফুরা তখন থেকে তিহার জেলে বন্দি ছিল। আগে দিল্লির পাটিয়ালা হাউস কোর্টে তিনবার জামিনের আবেদন সে জানিয়েছিল। যা খারিজ হয়ে যায়।