সিএনজি চালকই ধ’র্ষণ করে চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলে দেয় তরুণীকে

চট্টগ্রাম থেকে থেকে পেকুয়া। সেখান থেকে চকরিয়া হয়ে ফের উল্টো যাত্রার সময় কয়েকদফা ধ’র্ষণ। পরে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়া হয়। এ সময় বিপরীতমুখী অপর গাড়ির ধাক্কায় মারা যায় সে।

কক্সবাজারের খরুলিয়ার অষ্টাদশী তরুণী চম্পা হ’ত্যার রহস্য উদঘাটনে বের হয়ে আসে এ রোমহ’র্ষক তথ্য। এ তথ্য উদঘাটন করেছে র‌্যাব-১৫।শুক্রবার বিকেলে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ।

তিনি জানান, চট্টগ্রাম থেকে আসা ওই তরুণী পেকুয়া পর্যন্ত আসে। সেখান থেকে এক সিএনজি চালক তাকে চকরিয়ায় আনে। কিন্তু সেখান থেকে নিজ বাড়ি কক্সবাজারের খরুলিয়ার দিকে না গিয়ে ফের পেকুয়ার দিকে নিয়ে যায়। পথে একটি ব্রিজের পাশে তাকে দুই সিএনজি চালক মিলে ধ’র্ষণ করে। এরপর তার সঙ্গে কথা কা’টাকাটি হলে চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলে দেয়া হয়।

তিনি আরো জানান, ধ’র্ষকরা তাকে এত নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করেছে যে চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ির সামনে ফেলে দেয় তারা। ফলে ওই গাড়ির ধাক্কায় থেঁতলে গিয়ে মৃত্যু হয় চম্পার। এ ঘটনায় জড়িত জয়নাল নামে এক সিএনজি চালককে আটক করা হয়েছে। অপরজনকে আটকে র‌্যাব-১৫ এর সদস্যরা অ’ভিযান অব্যাহত রেখেছে।

গত ৬ মে রাত সাড়ে ১০টায় চকরিয়ার কোনাখালী ইউপি এলাকার আঞ্চলিক মহাসড়কে চলন্ত গাড়িতে হ’ত্যা করে রাস্তায় লা’শ ফেলে দেয়ার অ’ভিযোগ উঠে।

এ ঘটনায় বিয়ে সংক্রান্ত ব্যাপার নিয়ে হ’ত্যার অ’ভিযোগ এনে চম্পার বাবা রুহুল আমিন বাদী হয়ে ফুফি, ফুফা ও ফুফাতো ভাইকে আ’সামি করে চকরিয়া থানায় একটি অ’ভিযোগ দেয়া হয়। অবশেষে আসল ঘটনা উদঘাটন করলো র‌্যাব-১৫।

Published
Categorized as Crime