মধুর দাম্পত্য জীবন শেষ হতে পারে সাধারণ ছয় খাবারের কারণে!

মধুর দাম্পত্য জীবন শেষ হতে পারে সাধারণ ছয় খাবারের কারণে!

দাম্পত্য জীবনে সুখ শান্তি বজায় রাখার চেষ্টা স্বামী-স্ত্রী উভয়েরই থাকে। এক্ষেত্রে পারিবারিক অন্যান্য দায়িত্ব পালনের সঙ্গে সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কেও মধুরতা থাকা খুব জরুরি। নইলে শারীরিক সম্পর্কের এই অবনতি দাম্পত্য জীবনকে শেষ করে দিতে পারে।

জানেন কি, আমাদের নিজেদের কিছু ভুলেই যৌ’ন ইচ্ছা কমে যেতে পারে। যৌ’ন ইচ্ছা বাড়াতে কি খাবার খাওয়া জরুরি তা অনেকেই জানেন। তবে সমস্যাটি হচ্ছে, যে খাবারগুলো খেলে ধীরে ধীরে যৌ’ন ইচ্ছা কমে যায় তা অনেকেই জানেন না। এ জাতীয় খাবারগুলোকে বলা হয় অ্যানাফ্রোডিসিয়াক খাবার।

যদি আপনি যৌ’ন জীবনে সুখী থাকতে চান, তবে অবশ্যই খাবারের তালিকা থেকে এই খাবারগুলো বাদ দেয়া কিংবা খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে দেয়াই উত্তম। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সেই খাবারগুলো সম্পর্কে-

কফি

কফির নানান উপকারিতার সঙ্গে রয়েছে অপকারিতাও। এটি আমাদের শরীরে অ্যাড্রিনাল গ্ল্যান্ডগুলোকে সক্রিয় করে নানা ধরনের স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ বাড়ায়। এই ধরনের হরমোন আবার সে’ক্স হরমোন ও থাইরয়েডের ব্যালান্সে তারতম্য ঘটিয়ে যৌ’ন ইচ্ছা একদমই কমিয়ে দেয়। তাই অতিরিক্ত মাত্রায় কফি পান থেকে বিরত থাকুন।

কর্নফ্লেক্স

বিশ্ববিখ্যাত কেলগ’স কর্নফ্লেক্স তৈরি করেছিলেন জন হার্ভি কেলগ। তিনি আসলে পুরুষদের সে’ক্স ড্রাইভ কমানোর জন্য এটি তৈরি করেন? কর্নফ্লেক্সে থাকা চিনি আসলে টেস্টোস্টেরনের ক্ষরণ কমিয়ে দেয়। ফলে কমে আসে সে’ক্স ড্রাইভও।

অ্যালকোহল

অতিরিক্ত অ্যালকোহল গ্রহণ মানসিক অবসাদের দিকে ঠেলে দেয়। পুরুষেরা অতিরিক্ত অ্যালকোহলে আ’সক্ত হয়ে পড়লে তাদের শরীরে টেস্টোস্টেরনের মাত্রাও উল্লেখযোগ্যভাবে কমে যায়। আর এই সবগুলোই সেক্সুয়াল ড্রাইভের মরে যাওয়ার অনুঘটক মাত্র।

চিজ

চিজ অনেকেরই পছন্দের খাবারের তালিকায় থাকে। তবে বাজারে যে প্রক্রিয়াজাত চিজ কিনতে পাওয়া যায় তা গরুর দুধে তৈরি হলেও তাতে মেশানো হয় নানা ধরনের গ্রোথ হরমোন এবং অ্যান্টিবায়োটিক।

তাই চিজ বেশি খেলে মেয়েদের শরীরে এক ধরনের হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যায়। আর এটি তাদের মধ্যে শারীরিক মিলনের ইচ্ছাকে কমিয়ে দেয়। এমনকি, নানা ধরনের সেক্সুয়াল ডিসফাংশনও হতে পারে চিজ বেশি খেলে।

সয়া

সয়াবিনের মধ্যে থাকা একটি উপাদান আমাদের শরীরে হরমোনাল ইমব্যালান্স তৈরির জন্য দায়ী। অতিরিক্ত মাত্রায় এই খাবারটি খেলে নারী-পুরুষ উভয়য়েরই যৌ’ন ইচ্ছা কমতে বাধ্য।

পুদিনা

পুদিনা শরীর ঠাণ্ডা করে। আর ঠাণ্ডা শরীর মিলনের আগ্রহ কমিয়ে দেয়। এছাড়াও পুদিনার মেন্থল শরীরে টেস্টোস্টেরনের ক্ষরণও কমিয়ে দেয়।

সূত্র: কলকাতা টাইমস।