করোনার মধ্যে ঈদের আগে ৪ ধরণের সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী

করোনার মধ্যে ঈদের আগে ৪ ধরণের সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী

করোনাভাইরাসের মধ্যে চলছে পবিত্র রমজান মাস। তারমধ্যে সাধারণ ছুটি থাকায় প্রায় সবকিছু বন্ধ রয়েছে; যার ফলে অনেক মানুষ বেকার ও খাবারে কষ্টা পাচ্ছেন।

এসব নিয়ে দেশবাসীকে ৪ ধরণের সুখবর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার গণভবন থেকে রংপুর বিভাগের জেলা সমূহের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে সূচনা বক্তব্যে তিনি এ সুখবর দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, রমজানের বাজারঘাট ও ঈদের কেনাকাটার সুবিধার্থে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দোকানপাট চালু রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, করোনার কারণে ব্যবসা-বাণিজ্য সবকিছু যেহেতু একটু থমকে গিয়েছিল। এরইমধ্যে ছুটি ১৫ মে পর্যন্ত বৃদ্ধি করতে চাচ্ছি।

কিন্তু সবকিছু যেহেতু রমজান মাস। এ রমজানে মাসে যাতে কেনাবেচা চলতে পারে। তার জন্য দোকান-পাঠ খোলা বা যেহেতু রোজার সময়, ঈদের কেনা বা সেহরি খাওয়া বা রোজার মাসে বাজারহাট করা, সেগুলো যাতে চলতে পারে, সেদিকে আমরা বিশেষভাবে দৃষ্টি রেখে সেগুলোর খোলারও মানে চালু রাখারও নির্দেশ দিয়ে দিয়েছি।

দেশ প্রধান বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের যারা সেবা দিচ্ছেন তাদের জন্য ১০০ কোটি টাকার প্রণোদনা দেওয়া হবে। ডাক্তার, নার্স, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও সেনাবাহিনী যারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিচ্ছেন বিভিন্ন ভাবে তাদের এই প্রণোদনা দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে যাদের আয় উপার্জনের পথ নাই তাদের জন্য কিছু আর্থিক সহায়তা আমরা ঈদের আগে দিতে চাই। যাতে ঈদের সময় বা রোজায় কিছু করতে পারেন।

এছাড়া শেখ হাসিনা বলেন, সাধারণ ছুটির মধ্যেই সরকার পোশাক কারখানাসহ সরকারি গুরুত্বপূর্ণ দফতর সীমিত আকারে খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ ছাড়া সরকারের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয় সীমিত আকারে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।