যৌ’নকর্মীদের বাড়িতে মোমও নেই !

দিন দুয়েক আগেই ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের নিয়ে সরব হয়েছিলেন স্বস্তিকা। তাদের উপর নির্বিচারে রাস্তায় বসিয়ে জী’বাণুনাশক স্প্রে ছড়ানোয় যোগী আদিত্যনাথ স’রকারের তীব্র সমালোচনা করেছিলেন। দেশের দুস্থ মানুষেরা যে আরও কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন, সেই উ’দ্বেগও প্রকাশ করেছিলেন অভিনেত্রী। এবার যৌ’নকর্মীদের অভাব-অসুবিধে সমস্যা নিয়ে সরব হলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়।

একটি ছবি পোস্ট করে বর্তমান সময়ে প’তিতালয়ের রূঢ় বাস্তব দৃশ্য তুলে ধরেছেন স্বস্তিকা। যেখানে দেখা যাচ্ছে যৌ’নকর্মীদের বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে। লকডাউনে সন্তান-সন্ততি নিয়ে তাদের ভরসা বলতে শুধু ১০০ ফুট একটি জায়গা। যেখানে শুধুমাত্র একটি বেঞ্চ রয়েছে। ওটাতেই দিন-রাত পালা করে বাচ্চাদের নিয়ে ঘুমোচ্ছেন তারা।

যদিও ছবিটি ৩১ মার্চের। এই ছবিটিকেই শুক্রবার শেয়ার করে স্বস্তিকা লিখেছেন, ‘দেশবাসীকে একজোট হয়ে ক’রোনা মো’কাবিলার ডাক দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু যাদের বেঁচে থাকা’টাই কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে জল, খাবার, রেশন, টাকা না পেয়ে তারা মোমবাতি কোথায় পাবে?

প্রধানমন্ত্রী মোদির উদ্দেশে খানিক ব্যাঙ্গাত্মক সুরেই বললেন, ‘ওহ! যৌ’নকর্মীদের তো বেঁচে থাকার জন্য শুধু যৌ’নতারই প্রয়োজন তাই না!’

‘আমার বাড়িতে মোমবাতি নেই। আমি নিশ্চিত আমার মতো এরকম অনেকের বাড়িতে মোম মজুত নেই! চলুন সবাই মিলে মোমবাতি কিনতে যাই’- এভাবেই নিজের দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে খোঁচা দিলেন কলকাতার অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জি।

৫ এপ্রিল লকডাউনে সবার মনোবল বৃ’দ্ধি করতে নাগরিকদের ঘরের বারান্দায় দাঁড়িয়ে মোমবাতি জ্বা’লানোর আহবান করেছেন মোদি। তার সেই কর্মসূচিকে কটাক্ষ করেই এমন মন্তব্য করলেন স্বস্তিকা।

ক’রোনার প্রভাবে যেখানে দেশের একশ্রেণির মানুষেরা মাথা গোজার ঠাঁই থেকে খাবার, নিত্যপ্রয়োজনীয় অত্যাবশকীয় জিনিসের অভাবে দুর্বি’ষহভাবে দিন কা’টাচ্ছে, সেই পরিস্থিতিতে বাড়ির বারান্দায় দাঁড়িয়ে মোমবাতি-প্রদীপ জ্বা’লানো কতটা যুক্তিযুক্ত সেই প্রশ্ন তুলেছেন টলিউড অভিনেত্রী।