অ’ভিনব পদ্ধতিতে জার্মানীর মাস্ক ছি’নতাই যুক্তরাষ্ট্রের!

করোনা আ’তঙ্কের মধ্যে জার্মানীর ২ লাখ ফেইস মাস্ক চু’রির অভিযোগ উঠেছে যুক্তরাষ্ট্রের বি’রুদ্ধে। এই মাস্ক চু’রির বিষয়টিকে বলা হচ্ছে আধুনিক দ’স্যুতা।বার্লিনের আঞ্চলিক সরকার জানান, বার্লিন এর পুলিশ ফোর্স জন্য চীনে এফএফপি২ মাস্ক অর্ডার করা হয়েছিল। কিন্তু সেগুলো তাদের হাতে আসেনি। এ বিষয়ে জার্মানীর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন,মাস্কগুলো যুক্তরাষ্ট্রে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

জার্মানীর এক গণমাধ্যমের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রের এক কোম্পানি থেকে চীনে বানানো ওই মাস্কগুলো কিনেছিল জার্মানি। কিন্তু সেগুলো যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছানোর পরেই চালান বা’জেয়াপ্ত করা হয়। ফ্রান্সের রাজনীতিবিদরাও সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রকে চীনের ফেস মাস্ক সহ চিকিৎসা প্রতিরক্ষামূলক সরঞ্জাম কেনার জন্য অভিযোগ করেছেন যা ফ্রান্সের জন্য ছিল।

এদিকে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলছেন মাস্ক যা অর্ডার করা হয়েছে তার চেয়ে কম এসেছে দেশে। যুক্তরাষ্ট্রের যে প্রয়োজন রয়েছে কানাডাতেও তার কম নয়। করোনার মোকাবেলায় সবাইকে এক সাথে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।করোনার সময়ে চাহিদা মোকাবেলায় মাস্ক সহ অন্যান্য সরঞ্জামাদি তৈরিতে বিশ্বের অনেক দেশকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এ নিয়েই তৈরি হচ্ছে জটিলতা।