অনলাইনে চিকিৎসা; নারী চিকিৎসকে পাঠালো অ’শ্লীল ভিডিও

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের মানুষকে যখন নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করতে বলা হচ্ছে তখন সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা সেবা পৌঁছে দিচ্ছেন ঘরে ঘরে। রোগীরা যাতে ঘরে বসেই চিকিৎসা সেবা পেতে পারেন সেজন্য হাসপাতালের পক্ষ থেকে চালু করা হয়েছে টেলি মেডিসিন সেবা। কিন্তু এই সেবা দিতে গিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়েছে তাদের। সেবাদানরত এক নারী চিকিৎসকে পর্নো ভিডিও পাঠানো হয়েছে ননী বিশ্বাস নামের একটি আইডি থেকে।

সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক মামুন মোর্শেদ জানান, এই সেবা দেয়ার জন্য ফেসবুক পেজও খোলা আছে। যেখানে আজকে গাইনী ও স্ত্রীরোগ বিভাগের একজন চিকিৎসক লাইভে ছিলেন। তিনি নিতান্ত একজন ধার্মিক মহিলা। তিনি চিকিৎসা দিচ্ছিলেন। এরমধ্যে একজন এরকম অশ্লীল ভিডিও পাঠানো শুরু করে। এরপর তিনি আমার কাছে এসে ঘটনাটা বলেন। তিনি বলছেন, এভাবে চললে কীভাবে কাজ করব!

তিনি বলেন, আমরা ওই আইডিতে ঢোকার চেষ্টা করেছি। খুব সম্ভবত ফেক আইডি। এরপর আমরা শের-ই বাংলা নগর থানায় যোগাযোগ করেছি। থানার ওসি বিষয়টি দেখবেন বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে গাইনি বিভাগের ভুক্তভোগী ওই চিকিৎসক বলেন, আমরা যখন লাইভ শুরু করি তার আগমুহূর্তে একটি আইডি থেকে বারবার ঢোকার চেষ্টা করা হচ্ছিলো। তিনি আমাদের অনেকবার কল করেছেন।

তিনি বলেন, এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে দেশের এরকম দুঃসময়ে এ দুষ্টু মানুষেরা ঠিক আমাদের পাশেই অবস্থান করছে। এ মানুষগুলো যদি মানসিক ভারসাম্যহীন হয় তবে তাদের চিকিৎসা করতে হবে। আর যদি ইচ্ছাকৃত এ ধরনের কাজ করে থাকে তাহলে তাদের অবশ্যই শাস্তি দেয়া উচিত।