সরকার দলীয় দুই এমপি হোম কোয়ারেন্টাইনে

(১) সরকার দলীয় দুটি আসনের এমপি হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তারা হচ্ছেন যথাক্রমে ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) আসনের এমপি হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী ও ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসনের এমপি কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু। তাঁরা দু জনই বিদেশ থেকে ঘুরে এসেছেন। কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু শনিবার ভারতের মুম্বাই থেকে ফিরে ঢাকায় অবস্থান করছেন। হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী ওমরাহ পালন শেষে ৭ মার্চ দেশে ফিরে নিজ এলাকায় আসেন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ১৭ তারিখ পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে তার অবাধ বিচরণ ছিল।

(২) তিন মার্চ সৌদিতে প্রথম ক’রোনায় আ’ক্রান্ত রো’গী শনাক্ত হয়। এর পরের সপ্তাহেই বৈশ্বিক ম’হামা’রী ক’রোনাভা’ইরাসেের বিস্তার রোধে সব মসজিদে জামাতে নামাজে পড়া বন্ধ ঘোষণা করে দেশটি। এমন প্রেক্ষাপটেই দেশে ফেরেন এমপি মাদানী। পরে ১০ দিনের মাথায় যোগ দেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে।

(৩) স্থানীয় উপজে’লা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা, কেক কা’টা ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি। মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উদ্্যাপনের এসব ছবি ও ভিডিও নিজের ফেসবুক পেজে আপলোড করেন এমপি মাদানী। এরপর টানা দুই দিন তিনি দুটি স্ট্যাটাস দেন, যেখানে তিনি লেখেন- ‘প্রিয় ত্রিশালবাসী, স’রকারের নির্দেশ, ক’রোনাভা’ইরাসেের কারণে যে কোনো ধরনের জমায়েত, অনুষ্ঠান, খেলাধুলার সমাবেশ থেকে বিরত থাকুন। ধন্যবাদ।’

(৪)অপরটিতে লেখেন, ‘আল্লাহ পাকের রহমতে আমি ভালো আছি। ০৭/০৩/২০২০ তারিখে পবিত্র ওমরাহ পালন করে দেশে ফিরে আসি। আমি হোম কোয়ারেন্টাইনে আছি। দেশ ও জাতির স্বার্থে বিদেশ থেকে আগত সকল ভাইবোনেরা স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে চলে আসুন।’ আওয়ামী লীগদলীয় সং’সদ সদস্য হাফেজ রুহুল আমিন মাদানীর দেওয়া দুটি ফেসবুক স্ট্যাটাস বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশনা মোতাবেক তার ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা। কিন্তু সেই হিসাবে তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে থেকেছেন মাত্র ১০ দিন।

(৫) উল্টো ১০ দিনের মাথায় তিনি নিজেই নিয়ম ভে’ঙে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং আলোচনা সভায় প্রায় ২০ মিনিট বক্তব্য রাখেন। সেই আলোচনা সভায় বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘১৫৫টি দেশে ক’রোনাভা’ইরাসে ছড়িয়ে পড়েছে। এ কারণে স’রকার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর প্রো’গ্রাম অনেক শর্ট করেছে, যাতে বেশি মানুষ জমায়েত না হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে সকালে ফুল দিতে আসি। তখন অনেক গ্যাদারিং হয়ে যাচ্ছিল। আজ সারা দেশে যেভাবে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছিল, এটা সীমিত আকারে হওয়ার কথা নয়।

(৬) স’রকারি নির্দেশে এই প্রো’গ্রাম সংক্ষি’প্ত। সীমিত আকারে অনুষ্ঠান, তাই আমি কাউকে বলি নাই। উপজে’লা চেয়ারম্যান, ইউএনও সাহেব বলছেন, আপনাকে অনুষ্ঠানে থাকতে হবে। আমি একাই এসেছি।’ স্থানীয় উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘তিনি (এমপি মাদানী) এলাকায় আছেন শুনে দাওয়াত দিয়েছিলাম। তবে কবে সৌদি থেকে ফিরেছেন তা জানা ছিল না।’