রাঙ্গামাটিতে ২৩৪ প্রবাসী আত্মগো’পনে

ক’রোনাভা’ইরাসে প্রতিরোধে রাঙ্গামাটি জে’লা প্রশাসনের আয়োজনে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকেল ৫টায় জে’লা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

রাঙ্গামাটির জে’লা প্রশাসক (ডিসি) একেএম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন বিপাশ খীসা, অতিরিক্ত জে’লা প্রশাসক শিল্পী রানী রায় ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছুফি উল্লাহসহ জনপ্রতিনিধিরা।

সভায় ডিসি মামুনুর রশিদ বলেন, ক’রোনাভা’ইরাসে মো’কাবিলায় আমরা প্রস্তুত। এ নিয়ে কেউ যাতে গুজব ছড়াতে না পারে সেদিকে নজর রাখতে হবে। সবাইকে সচেতন হতে হবে। সভায় রাঙ্গামাটিতে পর্যটক আপাতত না আসার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

ইমিগ্রেশনের তথ্যমতে, গত ১ থেকে ১৮ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে রাঙ্গামাটিতে ২৪৩ জন এলেও মাত্র নয়জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখতে পেরেছে জে’লা স্বাস্থ্য বিভাগ। বাকি ২৩৪ জন তথ্য গো’পন করে অবস্থান করছে বিভিন্ন স্থানে। তাদের অবস্থান শনাক্ত করতে জে’লায় কর্মরত সবগুলো গো’য়েন্দা সংস্থা একযোগে কার্যক্রম শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন রাঙ্গামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছুফিউল্লাহ।

তিনি বলেন, রাঙ্গামাটিতে এসে ২৩৪ প্রবাসী আত্মগো’পনে রয়েছেন। তাদের খুঁজছি আমরা। তাদের খুঁজে বের করে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হবে।

রাঙ্গামাটির ডিসি মামুনুর রশিদ বলেন, এ মাসে রাঙ্গামাটি এসেছেন ২৪৩ জনের একটি তালিকা আমাদের হাতে এসেছে। তালিকাটি আমরা যাচাই-বাছাই করছি। এরা সবাই রাঙ্গামাটি এসেছেন কি-না, এলেও কোথায় আছেন সেই তথ্য সংগ্রহ করছি। ইতোমধ্যে তালিকা সব উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে। এদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে বৃহস্পতিবার থেকে মাঠে নামবেন ভ্রাম্যমাণ আ’দালত।

রাঙ্গামাটির সিভিল সার্জন বিপাশ খীসা বলেন, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক। দেশের স্বার্থ বিবেচনায় না নিয়ে এসব প্রবাসী আত্মগো’পনে আছেন। ফলে এরা নিজেরাই যেমন ঝুঁ’কিতে রয়েছেন তেমনি তার পরিবার ও সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিরাও ঝুঁ’কিতে পড়েছেন। আত্মগো’পনে থাকা প্রবাসী ভাইদের প্রতি অনুরোধ, আপনারা তথ্য দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন।