আমেরিকার প্রস্তাব বিবেচনাধীন তুরস্কের

রুশ ক্ষে’পণা’স্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা না চালানোর প্রতিশ্রুতির শর্তে তুরস্ককে নিজেদের প্যাট্রিয়ট ক্ষে’পণাস্ত্র’ব্যবস্থা হস্তান্তরের প্রস্তাব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েপ এরদোগান এমন তথ্য দিয়েছেন। এতে ন্যাটো মিত্রের প্রতি ওয়াশিংটনের কঠোর অবস্থান উল্লেখযোগ্য শিথিল হওয়ারই আভাষ দিচ্ছে।- খবর রয়টার্সের ।

তুরস্কের দুই কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, মার্কিন প্রস্তাব বিবেচনাধীন রেখেছে তুরস্ক। কিন্তু এস-৪০০ পরিকল্পনা থেকে সরে আসেনি আঙ্কারা। আগামী মাসে এই ক্ষে’পণা’স্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা স’ক্রিয় করার কথা রয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন বলছে, এই ইস্যুতে নিজের অবস্থান বদল করেননি মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার।

তুরস্ক এস-৪০০ থেকে সরে না এলে প্যাট্রিয়ট ব্যাটারি পাবে না বলে তিনি জানিয়েছেন। আঙ্কারা গত বছর এস-৪০০ ক্রয় শুরু করলে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে মতভিন্নতা দেখা দেয়। ওয়াশিংটন বলছে, এই ক্ষে’পণা’স্ত্র প্রতির’ক্ষাব্যবস্থা ন্যা’টো আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থার সঙ্গে বেমানান। চলতি বছরে ইদলিব অঞ্চলে ব্যা’পক ল’ড়াইয়ের পর ওয়াশিংটনকে তুর্কি সীমান্তে প্যাট্রিয়ট ক্ষে’পণা’স্ত্র মোতায়েন করতে বলেছে আঙ্কারা।

কিন্তু ওয়াশিংটন বলছে, তারা এস-৪০০ ও প্যাট্রিয়ট ক্ষে’পণা’স্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা একসঙ্গে পেতে পারে না। ব্রাসেলস থেকে ফেরার পর সাংবাদিকদের এরদোগান বলেন, তুরস্কে প্যাট্রিয়ট বসাতে ওয়াশিংটনকে বলা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে তারা এই আকাশ প্রতিরক্ষা কিনতে প্রস্তুত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, প্যাট্রিয়টের জন্য আমরা ওয়াশিংটনকে প্রস্তাব দিয়েছি। যদি তারা আমাদের সেটি দিতে চায়, তবে দিতে পারে। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে প্যাট্রিয়টও কিনতে পারি। ‘এস-৪০০ নিয়ে তাদের অবস্থানও আগের তুলনায় নরম হয়েছে। এখন তারা এস-৪০০ সক্রিয় না করতে প্রতিশ্রুতি চাচ্ছে,’ বললেন তুর্কি নেতা। রয়টার্স।