অন্য পুরুষের সাথে স’হবাসে রা’জি না হ’ওয়ায় স্ত্রী’র মা’থা ন্যা’ড়া করল স্বা’মী

অন্য পুরুষের সাথে রাজি না হওয়ায় স্ত্রী’র মা’থা ন্যা’ড়া করে দিয়েছেন স্বা’মী আমিরুল ইসলাম (৪৭)। শনিবার (৭ মার্চ) বিকেলে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজে’লার মিস্ত্রিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার স্বামীর বি’রুদ্ধে মা’মলা দা’য়ের করেছেন নি’র্যাতিতা নারী। দুপুরে পুলিশ অ’ভিযুক্ত স্বামীকে গ্রে’ফতার করেছে।

অ’ভিযুক্ত আমিরুল ইসলাম মৃ’ত ফতে আলীর ছেলে। তার বাবার বাড়ি কুষ্টিয়া জে’লায়। আমিরুলের স্ত্রী ঝিনাইদহ জে’লার মহেশপুর থানার কাঞ্চনপুর গ্রামের সোরাপ আলী মন্ডলের মেয়ে। তাদের সংসারে সম্পা (১১), চম্পা (৮) দুই মেয়ে ও রাব্বী হাসান নামে ১৩ মাস বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, আমিরুল তার স্ত্রীকে প্রায় শা’রীরিক নি’র্যাতন করেন। বেশির ভাগ সময় বাড়ির গেট বন্ধ করে শরীরে কাপড়বিহীন অবস্থায় লা’ঠি দিয়ে পে’টায়। সে জন্য তার বাড়িতে কোনো মানুষ যায় না। তার নি’র্যাতনের সময় কেউ বা’ধা দিলে তার নামে আমিরুল স্ত্রীকে জড়িয়ে মিথ্যা বদনাম দিতেন।

ভু’ক্তভোগী নারী জানায়, তার স্বামী আমিরুল বেশ কয়েকদিন থেকে তাকে শা’রীরিক নি’র্যাতন করত এবং অন্য পুরুষের সাথে সহবাসের কুপ্রস্তাব দিত। এমন প্রস্তাবে রাজি না হলে নি’র্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দিত এবং খাওয়া-দাওয়ার খরচ বন্ধ করে দিত। এমন যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে গত ৭ মার্চ শনিবার বালিয়াডাঙ্গীতে ননদের বাড়িতে বিচার দিতে গেলে সেখানে স্বামী আমিরুল উপস্থিত হয়।

সেখান থেকে জো’র করে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে এবং হাত-পা বারান্দায় পিলারের সাথে বেঁ’ধে ব্লেড দিয়ে তার মাথা ন্যা’ড়া করে দেয়। তার কা’ন্নার শব্দ শুনতে পেরে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।

পরে পুলিশ এসে তাকে উ’দ্ধার করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আমিরুল বাড়ি থেকে পা’লিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, নি’র্যাতনের বি’ষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বিচার দিয়েও কোনো কাজ হয়নি। তার স্বামী আমিরুলের বিচার এলাকায় কেউ করতে চায় না।