২৩ বউয়ের ১০০ সন্তান, ৯৪ বছরের বৃদ্ধ আরো চান

একজন বউকে নিয়ে সংসার করতে যেখানে মানুষ হিমশিম খেয়ে যান সেখানে কিনা ২৩ বউ। অবাক করা বিষয় হলেও সত্যিই। উগান্ডার ৯৪ বছর বয়সী নুলু সিমাকুলার বর্তমানে ২৩ স্ত্রী এবং ১০০ সন্তান রয়েছে।
উগান্ডার রুওনজা গ্রামে তার বাস। সেই গ্রামের রীতিই হলো বহুবিবাহ। এমনকি কে কার চেয়ে বেশি বিয়ে করতে পারেন সেই প্রতিযোগীতাও চলে প্রতি পুরুষের মাঝে। নুলু ১৯৫২ সালে প্রথম বিয়ে করেন। বর্তমানে সে এখনো পাঁচ নারীর সঙ্গে একত্রে বাস করছেন, যদিও তাদের এখনো বিয়ে করেননি।

তার সবচেয়ে ছোট সন্তানের বয়স মাত্র ১০ মাস এবং সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রীর বয়স ২৪। তিনিও সন্তানসম্ভবা। তার চার স্ত্রী গত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি ৬৬ সন্তানকে নিয়ে বসবাস করছেন। বাকিরা বিয়ে করে অন্যত্র বসবাস করছেন। নুলু জানান, এখনো আমার বিয়ে করার যোগ্যতা রয়েছে। বেঁচে থাকলে সামনে আরো কয়েকটি বিয়ে অবশ্যই করব। সন্তান এবং স্ত্রীদের মাঝেই আমি আমার শান্তি খুঁজে পাই। তারাই আমার সম্পদ। আমি এখনো শারীরিকভাবে যুবকের ন্যায়।

তিনি আরো জানান, এতো জন সন্তান ও স্ত্রী আর দেশ সামলানো একই বিষয় মনে হয় আমার। এজন্য জ্ঞান ও বুদ্ধি দুটোরই প্রয়োজন রয়েছে। আমার একটি মসজিদ ও প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এছাড়াও একটি কফির মেশিন ও দুগ্ধজাতীয় পণ্য ঠাণ্ডা রাখার মেশিন রয়েছে আমার হোটেলে। এসবই আমার রোজগারের উৎস। পাশাপাশি আমি কৃষিকাজও করে থাকি।

নুলুর সবচেয়ে বৃদ্ধা স্ত্রীই তার এতো বড় পরিবারকে সামলিয়ে থাকেন। তার নাম শাদিয়া। তিনি জানান, পরিবারে ছোট বড় সবাইকে দেখে রাখি আমি। সবার অভিযোগ শুনি। কারো সঙ্গে বিরোধ হলে সেসব বিষয়ের সমাধান করি। আমরা যারা বয়স্ক আছি তারা রান্নাঘরের কাজেই বেশি ব্যস্ত থাকি। বাকিরা কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত।